• December 4, 2021

প্রশাসনের চোখরাঙানি উপেক্ষা করে এগিয়ে যাচ্ছে জলাভূমি রক্ষা কমিটি

 প্রশাসনের চোখরাঙানি উপেক্ষা করে এগিয়ে যাচ্ছে জলাভূমি রক্ষা কমিটি

অভিজিৎ রায়

গত ২৭শে অক্টোবর জলাভূমি রক্ষা কমিটির অনশন ধর্মঘটকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাসন এক দুন্দুমার কান্ড ঘটিয়ে বসলেন। প্রায় এক মাসের প্রস্তুতিতে এই কর্মসূচির ডাক দিয়েছিলেন জলাভূমি রক্ষা কমিটি। অথচ সদর মহকুমাশাসক আগের দিন রাত্রে কমিটির সদস্যদের ডেকে পাঠিয়ে কর্মসূচি পালন করা যাবে না বলে নিদান দেন নাইট কার্ফুর অছিলায়।

জলাভূমি রক্ষা কমিটি শর্ত মেনে তার দশটা পর্যন্ত কর্মসূচি চালাবেন প্রতিশ্রুতি দিলে মহকুমাশাসক মাইকের ব্যবহার করা যাবে না বলে ফরমান জারি করেন। কমিটির সদস্যরা সেই শর্ত মানতে রাজি হন না। পরের দিন অনশন ধর্মঘট শুরুর আগেই পুলিশ এসে মাইক খুলে দেয়। সেভাবে কর্মসূচি চলছিল কিন্তু ঘন্টা দুয়েক পরে বিশাল পুলিশ বাহিনি এসে ২৬ জনকে গ্রেপ্তার করে।

এই ছাব্বিশ জনের মধ্যে সবাই জলাভূমি রক্ষা কমিটির সদস্য নয়। বহরমপুর শহরের কিছু উল্লেখযোগ্য নাট্যব্যক্তিত্ব, শিল্পী ও গুণীজনও এই সময় গ্রেপ্তার হন। এঁদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য অধ্যক্ষ অজয় অধিকারী, নাট্যনির্দেশক অভিজিৎ সরকার ও সঙ্গীতশিল্পী সীমা সরকার। প্রবীণ ও অসুস্থ শিক্ষক ও সমাজসেবী নির্মল সরকারকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করে। জলাভূমি ভরাটের বিরুদ্ধে গর্জে ওঠা কিছু অরাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে গ্রেপ্তার করে প্রশাসন বারুদে আগুন ধরিয়ে দিল বলে অনুমান করা হচ্ছে ২৮ তারিখের ধিক্কার মিছিলে আপামর বহরমপুরবাসীর আন্তরিক যোগদানের পর। গতকাল ২৮শে অক্টোবর জলাভূমি রক্ষা কমিটির ডাকে বহরমপুর টেক্সটাইল মোড় থেকে যে ধিক্কার মিছিলের ডাক দেওয়া হয় তাতে মানুষের উপস্থিতি ছিল উল্লেখ করার মতো। এদিন অবশ্য আশ্চর্যজনকভাবে পুলিশ প্রশাসন মিছিলে বাধা দিতে আসেননি। এক্ষেত্রে মাইকের ব্যবহারেও কোনও বাধা ছিল না।

প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া চালতিয়া বিল ভরাটের ক্ষেত্রে তারা সদর্থক ভূমিকা নেবার পরেও এই ধরণের অনশন ধর্মঘট অর্থহীন। অন্যদিকে জলাভূমি রক্ষা কমিটির পক্ষ থেকে প্রশাসনের কাছে গত চার বছরের অভিযোগ সমূহের হিসাব জানতে চাওয়া হয়। প্রসঙ্গত এ কথা মনে রাখা দরকার যে গত দশ বছরে বহরমপুর শহরে অন্তত চারটি বড় জলাভূমি ভরাট করে বহুতল ইতিমধ্যেই গড়ে তোলা হয়েছে। সাংসদ অধীর চৌধুরী জলাভূমি রক্ষা কমিটির সদস্যদের এই আন্দোলনকে সমর্থন করেছেন। অন্যদিকে তৃণমূল এখনও নিজেদের স্ট্যাণ্ড পয়েন্ট ঠিক করতে না পেরে ৩৪ বছরের বাম জমানার এবং ১৫ বছরের পৌর প্রশাসনের উপর দায় চাপিয়ে নিষ্কৃতি পেতে চাইছে।

  •  
  •  
  •  
  •  

1 Comments

  • নিরপেক্ষ বস্তুনিষ্ঠ প্রতিবেদনটির জন্য লেখককে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related post