• May 29, 2022

আমরা সবাই রাজা

 আমরা সবাই রাজা

পূর্বাঞ্চল নিউজ ডেস্ক : রাজা বিশ্বাস।গণ আন্দোলনের একজন একনিষ্ঠ কর্মী। রাজনৈতিক মতাদর্শে চালিত মানুষের দরদে নিয়োজিত এক প্রাণ। আদর্শের জন্য প্রাণপাত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজা আর তারই ফলস্বরূপ বেছে নিয়েছিল গণসাংস্কৃতিক আন্দোলনের পথ। রাজার কাছে শিল্প ছিল সম্মিলিত পরিশ্রমের আদুরে নাম। রাজা বিশ্বাস মনে করত শিল্পকে পৌঁছতে হবে মানুষের কাছে,সৃষ্টি তবেই পাবে সার্থকতা। বিপুল আয়োজন এর থেকে বিপুল প্রয়োজনকে বেশি গুরুত্ব দিতে চেয়েছিল রাজা বিশ্বাস। তাই সে হয়ে উঠেছিল সংগঠক, নাট্যকার,গীতিকার ও সর্বোপরি সমাজকর্মী।

পূর্ব কলিকাতা বিদূষক নাট্যমণ্ডলীতে নাটক লেখার মাধ্যমে রাজা বিশ্বাসের নাট্যকার জীবনের শুরুয়াত। ককেশিয়ান চক সার্কেল এর বাংলা অনুবাদ খড়ির গণ্ডি লিখিত হয়েছিল নন্দীগ্রাম-সিঙ্গুর কৃষক আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে। পরবর্তীতে কালো মাছের গল্প ,ভুত কা জনম, রাধারানী, সুখী রাজপুত্র ,কেন পল্টু জোরে ছোটে ইত্যাদি নাটক দর্শকদের ভাবিয়েছিল মানুষের কথা। বিভিন্ন সময়ে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পথ খুঁজত রাজারা; কখনো বন্যাপীড়িত অঞ্চলে পৌঁছে গিয়ে কখনোবা কলকাতার বিভিন্ন বস্তিতে মানুষের প্রয়োজনে পাশে থেকে। রাজা বিশ্বাস মনে করত সমাজের সবচেয়ে নিচু তলার মানুষরা একদিন পারবে সবচেয়ে উৎকৃষ্টতম শিল্প (জনগণের প্রয়োজনীয় শিল্প) সৃষ্টি করতে, আর সেই পথকে সুগম করতেই কখনো শ্রমিক মহল্লায় কখনোবা প্রত্যন্ত গ্রামে পৌঁছে যেতে হবে গান নাটক ছবি নিয়ে।সেই উদ্দেশ্যকেই ত্বরান্বিত করতে 2019 এর বন্যাত্রাণের পর তৈরি হলো এক নতুন সংগঠন জনগণমন। বন্যায় ঝড়ে বারবার বসতি ভেসে যাওয়া মানুষের হারিয়ে যায় দলিল-দস্তাবেজ।তাদের কাছে নাগরিকত্বের প্রমাণ চাইল সরকার। দেশজুড়ে শুরু হলো এনআরসির বিরুদ্ধে আন্দোলন। সেই আন্দোলনে প্রত্যক্ষভাবে শামিল হল জনগণমন। রচিত হলো প্যারোডি এবং অনেক নতুন গণসঙ্গীত। এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের সমর্থনে তৈরি হলো জনগণমনর নাটক ইঁদুরকল। জনগণমন’র পথচলার শুরুর দিকেই অন্যতম সংগঠক রাজা বিশ্বাস মস্তিষ্কের অসুখে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন। গণআন্দোলনের এ এক বিরাট ক্ষতি। তা সত্ত্বেও জনগণমন কিন্তু থেমে নেই,থেমে থাকতে পারে না,তার কারণ জনগণের কাছে তাদের প্রত্যক্ষ দায় আছে। সেই দায় নিয়েই রাজা বিশ্বাসের প্রথম প্রয়াণ দিবসে 30 শে নভেম্বর 2021 কলকাতার বইচিত্র সভাগৃহে অনুষ্ঠিত হলো ‘আমরা সবাই রাজা’।

অনুষ্ঠানে ‘রাজা বিশ্বাসের স্বপ্ন রাজনীতি ও জীবন’ বিষয়ে বললেন রাজার ব্যক্তিগত ও রাজনৈতিক বন্ধু পীযূষ গুহ। নকশালবাড়ির শপথের গান গাইলেন রাজা বিশ্বাসের কমরেড প্রশান্ত দাস।রাজা বিশ্বাস স্মারক বক্তৃতায় ছিল দুটি বিষয়। প্রথমে অশোক মুখোপাধ্যায় ‘পুঁজিবাদী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে জনতার প্রতিবাদের ভাষা’ শীর্ষক আলোচনা করলেন। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে বক্তা জয়দীপ মিত্র নিজেরই তোলা ফটোগ্রাফির একটি স্লাইড শো এর মাধ্যমে’ উদ্বাস্তুর দেশ কোথায়’ শীর্ষক আলোচনা করলেন। অনুষ্ঠানপ্রাঙ্গনে বহুবচন প্রকাশনীর বইয়ের সম্ভার ছিল। ছিল তাদের সদ্যপ্রকাশিত ও বহুলচর্চিত বই ‘আফগানিস্তান পুঁজি ও দস্যুতা’।

আর বলাই বাহুল্য,গোটা অনুষ্ঠানজুড়ে ছিল জনগণমন’র জনতার গান। কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে এবং কৃষকদের নৈতিক জয়ের পরিপ্রেক্ষিতে জনগণমনর নতুন গান ‘ভয় পেয়েছে ফ্যাসিবাদ’ শ্রোতাদের রক্তিম অভিবাদনে সমাদৃত হয়। জনগণমন’র পক্ষে জানানো হয় প্রতিবছরই রাজা বিশ্বাস স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করবে তারা। আগামী 29 ডিসেম্বর সন্ধেবেলা রাজা বিশ্বাসকে মনে রেখে বিদূষক নাট্যমণ্ডলী এবং জনগণমন একটি যৌথ অনুষ্ঠানও করতে চলেছে। সেই অনুষ্ঠানে বিদূষক নাট্যমন্ডলী রাজা বিশ্বাসের জীবন ও চর্যা নিয়ে একটি নাটক তথা আলেখ্য পরিবেশন করবে। থাকবে বিদূষক নাট্যমন্ডলীর শিশুশিল্পীদের অভিনীত নাটক ‘কালো মাছের গল্প’,বক্তা ধূর্জটিপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায় স্মারক বক্তৃতায় বলবেন ‘বাংলার কৌমসংস্কৃতি:উদ্ভব,বিকাশ,সংকট’ বিষয়ে। অনুষ্ঠানটিতে থাকবে জনগণমন’র গান।


আগামী দিনগুলোতে একইভাবে চলবে জনগণমনর নিয়মিত গানের অনুষ্ঠান, ছবি-পোস্টার প্রদর্শনী এবং নাট্যচর্চা। জনগণমন’র সংগঠকরা জানান,জনতার সংস্কৃতিকে ধারণ করে জনতার প্রতিবাদের ভাষা নিয়ে জনতার কাছে পৌঁছে যাওয়াই জনগণমন’র পথ আর সেই পথ থেকে তারা সরে দাঁড়াতে নারাজ।

  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related post