• May 29, 2022

অসময়ে মুকুল, হতাশ আমচাষিরা

 অসময়ে মুকুল, হতাশ আমচাষিরা

বাপি সিংহ

শীতের মরশুমেই মালদার আমবাগানে মুকুল ফুটেছে। মুকুলে ভরে গিয়েছে কোন গাছ, আবার কোন কোন গাছে কুঁড়ির দেখা মিলতে শুরু করেছে। অগ্রিম জেলার আম বাগান গুলিতে মুকুল ফুটতে শুরু করে হতাশ আম চাষিরা। তাদের আশঙ্কা শীতের দাপটে কুড়ি অবস্থাতেই ঝরে যাবে সমস্ত মুকুল। শীতের তাপমাত্রা কমলে বা কুয়াশার দাপট বাড়লে মুকুলে জন্ম নিবে ছত্রাক। যার নষ্ট করে দিবে আম হওয়ার আশা। আর তাতেই নিরাশ হয়েছেন জেলার আম চাষিদের একাংশ। যদিও জেলা উদ্যানপালন দফতরের কর্তারা আমচাষীদের আশ্বাস দিয়ে বলছেন, সঠিক পরিচর্যা করলে এখন ফোটা মুকুলেও আম হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে শীতের দাপট বাড়লে বা কুয়াশা পড়লে নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই যে সমস্ত গাছে আমের মুকুল ফুটতে শুরু করেছে সেগুলিকে কীটপতঙ্গের হাত থেকে রক্ষা করতে কীটনাশক স্প্রে করার পরামর্শ দিচ্ছেন উদ্যানপালন দফতরের কর্তারা।


সাধারণত মালদা জেলায় বসন্তের শুরুতে আমের মুকুল ফুটতে শুরু করে। জানুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত হলো আমের মুকুল ফোটার অনুকূল আবহাওয়া। তবে চলতি মরশুমে আবহাওয়ার পরিবর্তন এর জন্যই শীতে আম গাছগুলোতে মুকুল ফুটতে শুরু করেছে। শীত থাকলেও এখন তাপমাত্রার পারদ অনেকটাই আমের মুকুল ফোটার পক্ষে অনুকূল। তাই অধিকাংশ গাছে মুকুল ফুটতে শুরু করেছে। আগামীতে আবহাওয়ার পরিবর্তন না হলে বা কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না ঘটলেই মুকুল গুলিতেও আমের গুটি আসবে। এমনটাই দাবি জেলা উদ্যানপালন দফতরের কর্তাদের। মালদা জেলা উদ্যানপালন দপ্তরের আধিকারিক সামন্ত লায়েক বলেন, আবহাওয়ার পরিবর্তনের জন্য চলতি মরসুমে সময়ের আগেই কিছু আমবাগানে মুকুল ফুটতে শুরু করেছে। তবে সঠিক পরিচর্যা করতে পারলে এই মুকুলের আমের গুটি আসবে। তবে এখন যদি শীতের প্রকোপ বাড়তে শুরু করে বা কুয়াশা পড়লে মুকুল গুলি নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে আম চাষে ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।
মালদা জেলা উদ্যানপালন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে গত মরশুমে মালদা জেলায় মোট ৩১ হাজার ৪৫০ হেক্টর জমিতে আম চাষ হয়েছিল। ২০১৯-২০ মরশুমে জেলায় আম চাষের জমির পরিমাণ ছিল ৩০ হাজার ৮৫০ হেক্টর। আগামী মরশুমে জেলার আম চাষের জমির পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য পরিকল্পনা শুরু করা হয়েছে। গত মরশুমে মালদা জেলায় মোট আমের ফলন হয়েছিল ৩লক্ষ ৫ হাজার ১০০ মেট্রিক টন।২০১৯-২০ মরশুমে আমের ফলন হয়েছিল দুই লক্ষ আশি হাজার ৫৪০ মেট্রিক টন।গত মরশুমে হেক্টর প্রতি ফলন ছিল ১১.৯৩ মেট্রিক টন।

  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related post